রবিবার | ১৬ জুন, ২০২৪ | ২ আষাঢ়, ১৪৩১

নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবেন: প্রধানমন্ত্রী

নাটোর প্রতিনিধি :
আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নাটোরে নির্বাচনী জনসভায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্যে বলেছেন, ‘নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আপনারা জয়যুক্ত করবেন।’
বৃহস্পতিবার (২১ ডিসেম্বর ২০২৩) বিকেলে তিনি রাজধানীর তেজগাঁওয়ে অবস্থিত ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয় থেকে নাটোর ছাড়াও পঞ্চগড়, লালমনিরহাট, পাবনা ও খাগড়াছড়ি জেলার নির্বাচনী জনসভায় বক্তব্য দেন।
বক্তব্য শেষে পাঁচ জেলার নেতাদের আলাদা আলাদাভাবে কথা শোনেন প্রধানমন্ত্রী। নাটোর জেলার নাম ঘোষণা হলে নাটোরের সভায় উপস্থিত নেতৃবৃন্দ সবাই চেয়ার থেকে ওঠে দাঁড়ান।
এ সময় প্রধানমন্ত্রী সবার উদ্দেশ্যে বলেন, ‘সবাই বসো। কাঁচাগোল্লা তো পেলাম না।’ প্রধানমন্ত্রী কথা শেষ করতেই তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, কাঁচাগোল্লা আমরা দেব মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, ৭ তারিখে।
প্রতিমন্ত্রী পলক নাটোরের চারটি আসনের নৌকার প্রার্থীদের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিয়ে বলেন, ৭ তারিখে নাটোরের ৪টি আসনে আমাদের যাদেরকে মনোনয়ন দিয়েছেন নাটোর-১ থেকে শহিদুল ইসলাম বকুল, নাটোর-২ থেকে শফিকুল ইসলাম শিমুল, নাটোর-৩ থেকে আমি জুনাইদ আহমেদ পলক এবং নাটোর-৪ থেকে সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারীকে বিজয়ী করতে আমরা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল ইসলামের নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ আছি।


পলক বলেন, নাটোরে আসার জন্য বঙ্গবন্ধু সেতু থেকে বাংলাদেশের প্রথম সার্ভিস লেনসহ স্মার্ট রাস্তা দিয়েছিলেন। লালপুর-বাগাতিপাড়ায় বাংলাদেশ আর্মি ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজি দিয়েছেন। নাটোরবাসীর প্রাণের দাবি ড. ওয়াজেদ মিয়া কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় পেয়েছি। সিংড়াবাসী আপনার দেওয়া হাইটেক পার্ক, শেখ রাসেল ইনকিউবেশন সেন্টার পেয়েছে। আপনার প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানানোর জন্য আগামী ৭ তারিখ নৌকার পক্ষে ভোট বিপ্লবের মাধ্যমে স্মার্ট নাটোর গড়ে তুলবো এবং স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার জন্য আপনাকে সুযোগ করে দেব।
আইসিটি প্রতিমন্ত্রী অ্যাড. জুনাইদ আহমেদ পলক প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনার অনুমতিক্রমে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আমাদের শ্রদ্ধেয় নেতা অ্যাড. সিরাজুল ইসলাম ভাইকে কিছু বলার জন্য অনুরোধ করছি।
প্রতিমন্ত্রী পলক এ কথা শেষ করতেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হাঁসতে হাঁসতে বলেন, ‘ডিজিটাল সাহেব’ তুমি সভাপতিকে দাও। ‘ডিজিটাল সাহেব’ তুমি সভাপতিকে দাও দু’বার সম্বোধন করেন তিনি। এ কথা শুনে উপস্থিত নেতাকর্মীরা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে হাসতে থাকেন।
বক্তব্যে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনাকে আন্তরিকভাবে সালাম জানাচ্ছি। ‘আসসালামু আলাইকুম’ এবং নাটোরবাসীর পক্ষ থেকে আন্তরিক ধন্যবাদ। আপনি গতকাল সিলেট থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছেন প্রথমে। দ্বিতীয় ধাপে আজকে নাটোরের সঙ্গে আপনি সংযুক্ত হয়েছেন। এজন্য নাটোরবাসী ধন্য এবং কৃতজ্ঞ। আপনি নাটোরবাসীকে ভালোবেসে সংযুক্ত হয়েছেন, সেজন্য আরেক বার আপনাকে নাটোরবাসীর পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।
তিনি আরও বলেন, এই সভার মাধ্যমে নাটোরবাসীর কাছে মেসেজ চলে গেল যে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে আমাদের চারজন মনোনীত প্রার্থীকে জয়যুক্ত করতে হবে। আগামী দিনে আপনি প্রধানমন্ত্রী হবেন এবং নাটোরের উন্নয়ন অব্যাহত রাখবেন। প্রধানমন্ত্রী আপনাকে জানাতে চাই যে, আপনি নলডাঙ্গার বুড়ির ভাগ মাঠে এসে নলডাঙ্গা উপজেলা দিতে চেয়েছিলেন, সেই উপজেলা দিয়েছেন। নলডাঙ্গাবাসী আজকে আপনার প্রতি ভালোবাসায় মুগ্ধ, আজকে সকলেই আপনাকে ভোট দেন।
সভাপতির বক্তব্য শেষ হলে সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, নাটোরের আলাদা গুরুত্ব আছে। আমরা চাই যে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আপনারা জয়যুক্ত করবেন। কিন্তু নিজেদের ভেতর কোনো সংঘাত আমি দেখতে চাই না, কেননা আমরাই উন্মুক্ত করে দিয়েছি সিট। সবাই ইলেকশন করবে। জনগণ আসবে, জনগণ ভোট দেবে। যাকে তাদের পছন্দ তাকে ভোট দেবে।
তিনি আরও বলেন, নির্বাচনটাকে আমরা এমনভাবে করতে চাই যেন জনমানুষের সম্পৃক্ততা বাড়ে, ভোটার যেন এসে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট দিতে পারে।
শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমি যেসকল জেলায় ভিডিও কনফারেন্স করলাম। আগামীতে প্রত্যেক জেলায় সরাসরি সফর করব।

স্বত্ব: নিবন্ধনকৃত @ প্রাপ্তিপ্রসঙ্গ.কম (২০১৬-২০২৩)
Developed by- .::SHUMANBD::.