বৃহস্পতিবার | ২৩ মে, ২০২৪ | ৯ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১

লালপুরে মৃত আত্মীয়কে দেখতে যাওয়ার পথে স্বামী ও স্ত্রীর মৃত্যু

নাটোর প্রতিনিধি :
নাটোরের লালপুরে মৃত আত্মীয়কে দেখতে যাওয়ার পথে ঘন কুয়াশায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ভুটভুটি উল্টে স্বামী ও স্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে। অপর দুর্ঘটনায় যাত্রীবাহী বাস ও ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।
বৃহস্পতিবার (১১ জানুয়ারি ২০২৪) সকাল পৌনে ৭টার দিকে বানেশ্বর-ঈশ্বরদী আঞ্চলিক মহাসড়কের উপজেলার দক্ষিণ লালপুর গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহতরা হলেন একই এলাকার খায়েজ মোল্লার ছেলে চান্দু মোল্লা (৬২) ও তার স্ত্রী আরবী বেগম (৪৫)।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকাল পৌনে ৭টার দিকে বাড়ি থেকে আজিমনগর সেটশনে ট্রেন যোগে নওগাঁয় মৃত এক আত্মীয়কে দেখতে যাওয়ার জন্য তারা বের হন। ঘন কুয়াশায় বানেশ্বর-ঈশ্বরদী আঞ্চলিক মহাসড়কের উপজেলার দক্ষিণ লালপুর ফিলিং স্টেশনের নিকট তাদের দুজনকে বহনকারী ভুটভুটি ঘন কুয়াশায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই চান্দু মোল্লা মারা যান। স্থানীয়রা তার স্ত্রী আরবী বেগমকে উদ্ধার করে লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।


লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) সুরুজ্জামান শামীম বলেন, নিহত ওই নারী ঘটনাস্থলেই মারা গেছেন। হাসপাতালে আনার পর মৃত ঘোষনা করা হয়েছে।
স্থানীয় ঈশ্বরদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল আজিজ রঞ্জু বলেন, নিহতরা নওগাঁয় মৃত এক আত্মীয়কে দেখতে যাওয়ার আজিমনগর স্টেশনের উদ্দেশ্যে যাচ্ছিলেন। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ভুটভুটি উল্টে তাদের মৃত্যু হয়। ওই গাড়িতে তারা দুজনই যাত্রি ছিলেন।
এ বিষয়ে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে লালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাছিম আহম্মেদ বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। নিহতদের মরদেহ উদ্ধার থানায় নেওয়া হচ্ছে। দুর্ঘটনার পর নসিমনচালক পালিয়ে গেছেন। পরবর্তীতে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


অপর দুর্ঘটনায় ঘন কুয়াশায় যাত্রীবাহী বাস ও ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে। বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে পাবনা-বনপাড়া সড়কে উপজেলার কদিমচিলান ইউনিয়নের গোধড়া গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
আহতদের মধ্যে চারজনকে বনপাড়ার বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। আহতরা হলেন, ঝিনাইদহ জেলার ট্রাকের চালক শফিউল ইসলাম (৪০) ও চালকের সহকারি পঞ্চগড় জেলার আব্দুল কাদের (১৭)। বাসের যাত্রী রুবেল আহমেদ (৩২) ও তার ভাই উজ্জ্বল আলম (৩৬)।
আহত উজ্জ্বল আলম বলেন, ঢাকা থেকে ঈশ্বরদী এক্সপ্রেসে তিনি বাঘা যাচ্ছিলেন। বাসটি গোধরা এলাকায় পৌঁছালে ঝিনাইদহ থেকে পঞ্চগড়গামী একটি ট্রাকের সাথে বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ কল দিলে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।
বনপাড়া হাইওয়ে থানার পুলিশ পরিদর্শক হাবিবুর রহমান বলেন, বাস এবং ট্রাক আটক করা হয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে আইন অনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

স্বত্ব: নিবন্ধনকৃত @ প্রাপ্তিপ্রসঙ্গ.কম (২০১৬-২০২৩)
Developed by- .::SHUMANBD::.