শুক্রবার | ১৯ জুলাই, ২০২৪ | ৪ শ্রাবণ, ১৪৩১

মাইক্রোবাসের ধাক্কায় মা-মেয়ের প্রাণ গেল

নাটোর প্রতিনিধি :
নাটোরের লালপুরে মাইক্রোবাসের ধাক্কায় ভ্যান থেকে ছিটকে পড়ে মা ও মেয়ের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আরও ৫ জন আহত হয়েছেন।
বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই ২০২৪) দুপুর দেড়টার দিকে ঈশ্বরদী-বানেশ্বর আঞ্চলিক মহাসড়কের লালপুর উপজেলার দুড়দুড়িয়া ইউনিয়নের বেরিলাবাড়ি জামতলা তিনখুঁটি নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহতরা হলেন উপজেলার উধনপাড়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের আয়া হিসেবে কর্মরত উধনপাড়া গ্রামের মাহাবুব আলম বিজনের স্ত্রী মোছা. রুবিনা খাতুন (৩০) ও তাঁর মেয়ে রোকেয়া খাতুন রোকাইয়া (৪)। আহতরা হলেন, ভ্যানের যাত্রী মো. আবু বক্কারের ছেলে নিহতের স্বামী মাহাবুব আলম বিজন ও ভ্যানচালক পাইকপাড়া গ্রামের আলতাব হোসেনের ছেলে সাজু (৩২)। অটোর চার্জার ভ্যানের আহতরা হলেন, বাঘার আলাইপুর গ্রামের হাসেম (৬৫), হাসেমের ছেলে ছেলে ইউসুফ (৩৫) ও কাসেমের ছেলে সজিব (২২)।


থানা, হাসপাতাল ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার বেলা ১টার দিকে উপজেলার দুড়দুড়িয়া ইউনিয়নের বেরিলাবাড়ি জামতলা তিনখুঁটি নামক স্থানে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা থেকে রোগী নিয়ে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালগামী একটি মাইক্রোবাস (রেজিস্ট্রেশন নম্বর- ঢাকা মেট্রো চ-১১-৯০৪৩) পেছন থেকে অটো চার্জার গাড়িকে ধাক্কা দেয়। এ সময় স্থানীয়রা আহত তিনজনকে উদ্ধার করে বাঘা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। একই সময় চার্জার ভ্যানে উধনপাড়া গ্রামের মাহাবুব আলম বিজন, তাঁর স্ত্রী মোছা. রুবিনা খাতুন ও তাঁদের মেয়ে রোকেয়া খাতুন রোকাইয়ার চিকিৎসা করে রাজশাহীর বাঘা বাড়িতে আসছিলেন। এই সময় মাইক্রোটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বিপরীত দিক থেকে আসা ওই চার্জার ভ্যানকে মুখোমুখি ধাক্কা দিলে ভ্যান থেকে ছিটকে পড়ে মা ও মেয়ে ঘটনাস্থলে মারা যান। পরে তাদেরকে উদ্ধার করে লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসতে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষনা করেন। নিহতের স্বামী মাহাবুব আলম বিজন ও ভ্যানচালক সাজুকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) সুরুজ্জামান শামীম মৃত্যুর বিষয় নিশ্চিত করে বলেন, হাসপাতালে নেওয়ার আগেই মা ও মেয়ের মৃত্যু হয়েছে। নিহতের স্বামী মাহাবুব আলম বিজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে এবং ভ্যানচালক সাজুকে হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।


বাঘা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ইউএইচএফপিও) মো. আসাদুজ্জামান বলেন, বাঘার আলাইপুর গ্রামের হাসেম, ইউসুফ ও সজিব নামে তিনজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মো. হায়দার আলী বলেন, মাহাবুব আলম বিজন পোল্ট্রি মুরগির ব্যবসা করেন। তার বড় মেয়ে তাদের বড় মেয়ে বৃষ্টির বয়স ১২ বছর।
উধনপাড়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. বেলাল হোসেন বলেন, নিহত মোছা. রুবিনা খাতুন তাঁর বিদ্যালয়ে আয়া হিসেবে কর্মরত ছিলেন। এ ঘটনায় তাঁরা মর্মাহত।


লালপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাছিম আহম্মেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘাতক ড্রাইভার কৌশলে পালিয়ে গেলেও মাইক্রোটি লালপুর থানা পুলিশের হেফাজতে রয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের দেবর মো. তোফাজ্জল হোসেন বাদি হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। এ ব্যাপারে সড়ক আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

স্বত্ব: নিবন্ধনকৃত @ প্রাপ্তিপ্রসঙ্গ.কম (২০১৬-২০২৩)
Developed by- .::SHUMANBD::.