রবিবার | ১৬ জুন, ২০২৪ | ২ আষাঢ়, ১৪৩১

নারী চিকিৎসককে হেনস্তা: ভুয়া ডিবি পুলিশ গ্রেপ্তার

লালপুর (নাটোর) প্রতিনিধি
নাটোরের লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গেট সংলগ্ন মানবকল্যাণ মডেল হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক কমপ্লেক্স নামে এক নারী চিকিৎসককে ডিবি পরিচয়ে হেনস্তার অভিযোগে মো. সুমন মাহমুদ (৩৩) নামে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
বৃহস্পতিবার (২৬ অক্টোবর ২০২৩) লালপুর থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে উপজেলার পুরাতন ঈশ্বরদী এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে তাকে নাটোর জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।
লালপুর থানা সূত্রে জানা যায়, নাটোরের পুলিশ সুপার মো. তারিকুল ইসলামের দিক নির্দেশনায় ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বড়াইগ্রাম সার্কেল) মো. শরীফ আল রাজীবের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ঘটনার সাথে জড়িত আসামী শনাক্ত ও গ্রেপ্তারে লালপুর থানা পুলিশ তথ্য-প্রযুক্তির সহায়তায় অভিযান পরিচালনা করে মামলার তদন্তেপ্রাপ্ত আসামী মো. সুমন মাহমুদকে উপজেলার পুরাতন ঈশ্বরদী এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে।
লালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. উজ্জ্বল হোসেন বলেন, ওই নারী চিকিৎসকের অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে উপজেলার পুরাতন ঈশ্বরদী এলাকা থেকে অভিযুক্ত আসামি মো. সুমন মাহমুদকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে তাকে নাটোর জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।
উল্লেখ্য, নারী চিকিৎসককে ডিবি পরিচয়ে হেনস্তা ও ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে গত ৯ অক্টোবর ২০২৩ রাতে উপজেলার হাসপাতালের পরিচালক ও জোতদৈবকী গ্রামের হাসেম আলীর ছেলে একাব্বর হোসেন শান্ত (৩৭), তাঁর স্ত্রী রহিমা বেগম (৩০) ও বালিতিতা রামকৃষ্ণপুর গ্রামের আলমগীর হোসেনের স্ত্রী কল্পনা বেগম (২৮) এই তিনজনের বিরুদ্ধে লালপুর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন ওই চিকিৎসক।
এ ঘটনায় হাসপাতালের পরিচালক উপজেলার জোতদৈবকী গ্রামের হাসেম আলীর ছেলে একাব্বর হোসেন শান্তকে (৩৭) গত ১৬ অক্টোবর ডিবি ও থানা পুলিশের যৌথ অভিযানে নাটোর থেকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে তাকে নাটোর জেলহাজতে পাঠায়।
এর আগে গত ৪ অক্টোবর ২০২৩ হাসপাতালটি পরিদর্শন করে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে এ ঘোষনা দেন লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. কে এম শাহাব উদ্দিন। তিনি বলেন, নাটোরের সিভিল সার্জন ডা. মুহাম্মদ মশিউর রহমানের নির্দেশনা অনুযায়ী মানবকল্যাণ মডেল হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক কমপ্লেক্স পরিদর্শনকালে হাসপাতালটিতে রোগী ভর্তি থাকলেও সেখানে কোন ডাক্তার ছিলেন না। এছাড়া বিভিন্ন অনিয়ম থাকায় হাসপাতালটি সাময়িকভাবে বন্ধ ঘোষনা করা হয়।
গত বছর ২৪ আগস্ট দিনগত রাত সোয়া ১২টার দিকে এই হাসপাতালে সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে শিশু জন্মদানের সময় শারমিন আক্তার (১৯) নামে এক প্রসূতির মৃত্যু হয়।

স্বত্ব: নিবন্ধনকৃত @ প্রাপ্তিপ্রসঙ্গ.কম (২০১৬-২০২৩)
Developed by- .::SHUMANBD::.