সোমবার | ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ | ১৩ ফাল্গুন, ১৪৩০

নাটোর-৪ আসনে কাগজ-কলমে নয় হলেও প্রচারণায় চারজন প্রার্থী

সাজেদুর রহমান সাজ্জাদ, গুরুদাসপুর (নাটোর) :
দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের নাটোর-৪ (গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রাম) আসনে কাগজে কলমে ৯ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিত করছেন। নৌকাসহ চার প্রার্থী ভোটের মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। ভোটগ্রহণের দিন ঘনিয়ে এলেও অবশিষ্ট পাঁচ প্রার্থীর পোষ্টার, মাইকিং কিংবা প্রচার-প্রচারণা চোখে পড়েনি। এমনকি ভোটাররা তাদের নামও জানেন না।
প্রচারণায় এগিয়ে আছেন বর্তমান সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক নৌকার প্রার্থী সিদ্দিকুর রহমান ও স্বতন্ত্র তিন প্রার্থী। তারা হলেন-প্রয়াত সংসদ সদস্য আব্দুল কুদ্দুসের সন্তান আসিফ আব্দুল্লাহ শোভন (ট্রাক), জাহিদুল ইসলাম (ঈগল) ও সুজন আহম্মেদ (দোলনা)।
শোভন জেলা আওয়ামীলীগের তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক, জাহিদুল ইসলাম গুরুদাসপুর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আর সুজন আহম্মেদ আওয়ামী পরিবারের সন্তান।
ভোটারদের দেওয়া তথ্যে প্রচারনায় সরব নয় এমন পাঁচ প্রার্থীরা হলেন-জাতীয় পার্টির (জেপি) এস এম সেলিম রেজা (বাইসাইকেল), বাংলাদেশ কংগ্রেস পার্টির শান্তি রিবেরু (ডাব), তৃনমূল বিএনপির প্রার্থী আব্দুল খালেক সরকার (সোনালী আঁশ), বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলনের গাজী আবু সায়েম রতন (নোঙর), জাতীয় পার্টির প্রার্থী আলাউদ্দিন মৃধা (লাঙ্গল)। যদিও গত ২১ ডিসেম্বর সংবাদ সম্মেলন ডেকে আলাউদ্দিন মৃধা নির্বাচন থেকে সড়ে দাড়ালেও ব্যালটে তার লাঙল প্রতীক থাকছেই।
বৃহস্পতিবার (৪ জানুয়ারি ২০২৪) সকালে নাটোর-৪ আসনের বিভিন্ন এলাকার অন্তত ২০ জন ভোটার মাঠে সরব ও প্রচারবিমুখ প্রার্থীদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তারা জানান, কাগজে কলমে ৯ জন প্রার্থী থালেও প্রচারনায় রয়েছেন ৪ জন। বাকিদের নামও ভোটাররা জানেন না।
গুরুদাসপুর পৌর শহরের আনন্দ নগর ওয়ার্ডের ভোটার আব্দুল জব্বার বলেন, দেখতেই তো পাচ্ছেন চারিদিকে শুধু নৌকা, ট্রাক, ঈগলের প্রতীক লাগানো। কোথাও কোথাও দুই একটা দোলনার পোষ্টার ছাড়া কোন পোষ্টার নেই। অন্য প্রার্থীরা মাঠেও নেই।
উপজেলার খুবজীপুর ইউনিয়নের দিয়ারপাড়ার ভোটার মহরম আলী বলেন, নৌকার প্রার্থী সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আসিফ আব্দুল্লাহ শোভনের (ট্রাক) মধ্যে মূল লড়াই হবে। নৌকা, ট্রাক, ঈগল ও দোলনা প্রতীকের প্রার্থীর বাইরে কাউকে চেনেন না। এমন কি তাদের প্রতীক সম্পর্কেও ধারনা নেই তার।
গুরুদাসপুর পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ভোটার আওয়ামী সমর্থক আব্দুস সালাম বলেন, এখন আমাদের ঘুম নেই। আমরা মানুষের দ্বারে দ্বারে গিয়ে নৌকার পক্ষে ভোট চাচ্ছি। একই ওয়ার্ডের ভোটার ও চা বিক্রেতা খয়বর মন্ডল বলেন, সব জায়গায় তো নৌকার পোস্টার দেখি। অন্যদের আমি চিনি না। নৌকাতেই ভোট দেবো। তিনি বলেন এ আসনে লড়াই হবে নৌকা আর ট্রাকের মধ্যে।
গুরুদাসপুরে পৌর মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য শাহনেওয়াজ আলী বলেন, নৌকা স্বাধীনতার প্রতীক, নৌকা উন্নয়নের প্রতীক। এ আসনে উৎসবের আমেজ বইছে, উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট হচ্ছে। আর নৌকার প্রার্থীকে বিজয়ী করতে জনতা মুখিয়ে আছে।
স্বতন্ত্র প্রার্থী ও জেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক আসিফ আব্দুল্লাহ শোভন (ট্রাক) জানান, তার পিতা প্রয়াত আব্দুল কুদ্দুস পাঁচবারের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন। জননেত্রীর ডাকে সাড়া দিয়ে ভোটকে উৎসবমুখর করতে তিনি প্রার্থী হয়েছেন। ভোটের মাঠে প্রচুর সাড়া পাচ্ছেন। এ আসনের জনগন তাকেই বিজয়ী করবেন।

স্বত্ব: নিবন্ধনকৃত @ প্রাপ্তিপ্রসঙ্গ.কম (২০১৬-২০২৩)
Developed by- .::SHUMANBD::.